রাজ্য

বাবার হাতে শিশুকন্যা হত্যা

চার বছরের মেয়েকে খুন বাবার অভিযোগ মায়ের। বাবা পলাতক ঘটনার তদন্তে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে মহিষাদল থানার গাজীপুর গ্রামে। গাজীপুর গ্রামের সেক সেরাজুলের ছোটো মেয়ে সোহানা শুক্রবার ৪ তারিখ বাড়ির পাশের পুকুরে ডুবে যায়। প্রতিবেশীরা দেখতে পেয়ে সেরাজুলকে ডাকে। মেয়েকে নিয়ে বাসুলিয়া গ্রামীণ হাসপাতালে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করে। তারপর মেয়ের দেহ কবর দিয়ে দেয় সেরাজুল। সেরাজুলের স্ত্রী রোজিনা নন্দীগ্রামে বাপের বাড়িতে ১০ আগে চলে যায়। তার অভিযোগ মেয়েকে সেরাজুল খুন করে কবর দিয়েছে। সে মহিষাদল থানায় অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে রবিবার কবর থেকে দেহটি তোলা হয় ময়না তদন্তের জন্য। জানা গেছে ৯ বছর আগে সেরাজুলের বিয়ে হয় রোজিনার সঙ্গে। তার দুই মেয়ে। বছর চারেক আগে থেকে স্বামীর স্ত্রীর গন্ডগোল শুরু হয় রোজিনার অবৈধ সম্পর্ক নিয়ে। গ্রামে কয়েকবার বসাবসি হয়। একই সমস্যা নিয়ে আবারও গন্ডগোল হয় মাসখানেক আগে। পুনরায় রোজিনা পালিয়ে যায় নন্দীগ্রামে বাপের বাড়িতে। তারপরেই এই বিপদ ঘটে। রোজিনার অভিযোগের ভিত্তিতে মহিষাদল থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। তবে এই ঘটনায় এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button